শিরোনাম :

10/trending/recent

Hot Widget

অনুসন্ধান ফলাফল পেতে এখানে টাইপ করুন !

রাজশাহীতে করোনায় মৃত্যু ঘোষিত বৃদ্ধের রিপোর্ট নেগেটিভ



রাজশাহীতে করোনায় মৃত্যু ঘোষিত বৃদ্ধের রিপোর্ট নেগেটিভ

নিজস্ব প্রতিবেদক
রাজশাহীতে করোনা আইসোলেশন ইউনিটে গত রোববার (২৬ এপ্রিল) আব্দুস সোবহান নামে এক বৃদ্ধ মারা যান। প্রথম দফা নমুনা পরীক্ষায় তার করোনা ‘পজিটিভ’ এসেছিল।
তবে সন্দেহ থেকে দ্বিতীয় দফায় পরীক্ষার জন্য মৃত্যুর আগের দিন ওই বৃদ্ধের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল। সেই পরীক্ষার প্রতিবেদন ‘নেগেটিভ’ এসেছে।
বৃহস্পতিবার (৩০ এপ্রিল) রাতে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজের (রামেক) অধ্যক্ষ নওশাদ আলী এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
ওই ব্যক্তির ফুসফুসে পানি ও বাতাস জমায় চিকিৎসকরা তাকে বাঁচানো যায়নি বলে জানান তিনি।
৮০ বছর বয়সি আব্দুস সোবহানের বাড়ি বাঘা উপজেলার একটি গ্রামে। তাকেই রাজশাহীতে করোনায় মৃত প্রথম ব্যক্তি হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছিল। এখন নিশ্চিত হওয়া গেলো যে এই রোগে আক্রান্ত হয়ে রাজশাহীতে আর কারও মৃত্যু হয়নি।
রামেক হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, ১৯ এপ্রিল ওই বৃদ্ধ জ্বর ও প্রসাবের যন্ত্রণা নিয়ে রামেক হাসপাতালে ভর্তি হন। এক্স-রে করার পর চিকিৎসকেরা সন্দেহ করেন, তিনি করোনায় আক্রান্ত হতে পারেন। চিকিৎসকেরা তার নমুনা পরীক্ষা করান।
পরীক্ষার প্রতিবেদন ‘পজিটিভ’ আসে। তার পর থেকে তাকে হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে রাখা হয়। কিন্তু এর আগেই অনেক চিকিৎসক ও নার্স ওই বৃদ্ধের সংস্পর্শে এসেছিলেন। এমন ৪২ জন চিকিৎসক, নার্স ও কর্মচারীর নমুনা পরীক্ষা করা হয়।
এছাড়া, ওই রোগীর সঙ্গে থাকা তার স্ত্রী ও সন্তানেরও নমুনা পরীক্ষা করা হয়। কিন্তু পরীক্ষায় একটি প্রতিবেদনও ‘পজিটিভ’ আসেনি। ফলে চিকিৎসকেরা ওই রোগীর দ্বিতীয় দফায় নমুনা পরীক্ষার সিদ্ধান্ত নেন। গত শনিবার নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরের দিন সেই নমুনা পরীক্ষার আগেই তার মৃত্যু হয়।
এদিকে, রাজশাহী বিভাগীয় করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলা কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী রামেক হাসপতালে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত সবাইকে নগরীর ভেতরে নির্ধারিত জায়গা মেহেরচণ্ডি কবরস্থানে দাফন করা হবে। তাই ওই বৃদ্ধের লাশ বাঘা উপজেলার গ্রামের বাড়িতে নিতে দেয়া হয়নি। অবশ্য স্থানীয় লোকজনের বাধার মুখে নির্ধারিত কবরস্থানেও লাশ দাফন করা যায়নি। শেষ পর্যন্ত নগরের হেতেমখাঁ কবরস্থানে লাশ দাফন করা হয়েছে।
রামেক অধ্যক্ষ নওশাদ আলী বলেন, দ্বিতীয় পরীক্ষায় ওই ব্যক্তির প্রতিবেদন করোনা ‘নেগেটিভ’ এসেছে। তিনি আসলে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাননি। তার ফুসফুসে পানি ও বাতাস জমেছিল। এ কারণেই তাকে বাঁচানো সম্ভব হয়নি।

রাজশাহী/তানজিমুল/বুলাকী


from Risingbd Bangla News https://ift.tt/2zMJ77E
via IFTTT

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Top Post Ad

Below Post Ad