শিরোনাম :

10/trending/recent

Hot Widget

অনুসন্ধান ফলাফল পেতে এখানে টাইপ করুন !

পূর্বধলায় একটি নিরীহ পরিবারকে মিথ্যা মামলায় হয়রানি অভিযোগ

পূর্বধলা ( নেত্রকোনা) প্রতিনিধি:

নেত্রকোনার পূর্বধলা  উপজেলার কাজলা গ্রামের একটি নিরীহ পরিবারকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই গ্রামের মোখলেছুর রহমান গংদের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ উঠেছে। মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমুলক মামলার আসামী হয়ে নিরীহ বাহার উদ্দিন তালুকদার ন্যায় বিচার পেতে প্রশাসনসহ স্থানীয় সাংবাদিকদের ধারস্থ হয়েছেন।

মিথ্যা মামলায় হয়রানির শিকার উপজেলার কাজলা গ্রামের মৃত সাইফ উদ্দিন তালুকদারের ছেলে বাহার উদ্দিন তালুকদার জানান, তার চাচাত ভাই মোখলেছুর রহমান ও আনোয়ার হোসেনের সাথে তাদের দীর্ঘদিন যাবত তুচ্ছ বিষয়সহ জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিল। এ নিয়ে মোখলেছুর রহমান গং তাদের বিরুদ্ধে হয়রানিমূলক একাধিক মামলা মোকদ্দমাও করেন ।

নির্যাতিত বাহার উদ্দিন আরও জানান, গত ২৮ নভেম্বর চতুর্থ ধাপে অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তিনি বৈরাটি ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য হিসেবে নির্বাচন করেন। এ সময় তার চাচাত ভাই মোখলেছুর রহমানের পরিবার অপর প্রার্থী আলম মিয়ার সমর্থক হিসেবে কাজ করেন। নির্বাচনে আলম মিয়া বিজয়ী হওযার পর ২৮ নভেম্বর রাতে  মোখলেছুর রহমানের নেতৃত্বে শতাধিক লোক তার বাড়ির উঠানে এসে বিজয় মিছিল করে। 

এতে বাহার উদ্দিন বাধা দিলে মোখলেছসহ তার লোকজন তাদের ওপর হামলা চালায়। এ সময় তাদের হামলায় বাহার উদ্দিন, আলমগীর ও আবুল কাসেম গুরুতর আহত হয়। স্থানীয় লোকজন তাদের উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে ১৩ ডিসেম্বর মোখলেছ বাদী হয়ে উল্টো বাহার উদ্দিন ও তার পরিবারের ৫জনকে আসামী করে আদালতে একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করে।

স্থানীয় মৃত কালা মিয়ার ছেলে সেলিম মিয়া, মৃত নূর হোসেনের ছেলে রিপন মিয়া, মৃত নূরুল ইসলামের মেয়ে সুফিয়া খাতুন ও মদিনা বেগম জানান, গত ২৮ নভেম্বর রাত সাড়ে ৮টার দিকে দুই পক্ষের মাঝে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে প্রতিপক্ষের হামলায় বাহার উদ্দিনসহ ৩জন আহত হলেও প্রতিপক্ষের কেউ আহত হয়নি। 

৮৫ বছরের বৃদ্ধা বাহার উদ্দিনের মা আনন্দের নেছার  আকুতি তাঁর ছেলেরা যেন মিথ্যা ও হয়রানিমূল মামলা থেকে রেহাই পায়।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত মোখলেছুর রহমানের সাথে কথা বললে তিনি জানান, বাহার উদ্দিন আগে আমাদের উপর মামলা করেছে। এ মামলায় পুলিশ আমাদেরকে প্রতিনিয়ত হয়রানি করলে পরে আমরাও তাকে হয়রানি করার জন্য আদালতে মামলা করি।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Top Post Ad

Below Post Ad