শক্তিশালী হচ্ছে পল্লী বিদ্যুতের নেটওয়ার্ক - Purbakantho

শিরোনামঃ

শুক্রবার, ৬ মে, ২০২২

শক্তিশালী হচ্ছে পল্লী বিদ্যুতের নেটওয়ার্ক

ঢাকা: শক্তিশালী হচ্ছে পল্লী বিদ্যুতের নেটওয়ার্ক। এ জন্য বাপবিবোর বৈদ্যুতিক বিতরণ ব্যবস্থার আধুনিকায়ন ও ক্ষমতাবর্ধন (ঢাকা-ময়মনসিংহ বিভাগ) শীর্ষক একটি প্রকল্প প্রস্তাব করা হয়েছে পরিকল্পনা কমিশনে।,

এটি বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৬ হাজার ১৭৮ কোটি ৮৩ লাখ ৪১ হাজার টাকা। এরমধ্যে বিশ্বব্যাংকের ঋণ সহায়তা থেকে ৪ হাজার ২৫৭ কোটি ৫০ লাখ ১৬ হাজার টাকা এবং বাস্তবায়নকারী সংস্থা থেকে ৬৬২ কোটি ২৩ লাখ টাকা ব্যয় করা হবে। `প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য হলো- গ্রামীণ বৈদ্যুতিক বিতরণ ব্যবস্থার সক্ষমতা বৃদ্ধির মাধ্যমে বিদ্যুতের ২ হাজার ২২০ এমভিএ বর্ধিত চাহিদা পূরণ করা।, 

বিদ্যমান ১ কোটি ৭৮ লাখ গ্রাহককে সাশ্রয়ী মূল্যে নিরবচ্ছিন্ন ও মানসম্মত বিদ্যুৎ সরবরাহের মাধ্যমে টেকসই ও নির্ভরযোগ্য বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থা অর্জন এবং ঢাকা-ময়মনসিংহ বিভাগের বৈদ্যুতিক বিতরণ ব্যবস্থার সিস্টেম লস শূন্য দশমিক ৫ শতাংশ হ্রাস ও সিস্টেম এভারেজ ইন্টাররাপশন ডিউরেশন ইনডেক্স (এসএআইডিআই) ১ হাজার ২৭২ মিনিট/ গ্রাহক থেকে ৯৩৫ মিনিট/গ্রাহক হ্রাস করা। 

এ বিষয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে ঢাকা ও ময়মনসিংহের গ্রামাঞ্চলে বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থার সক্ষমতা ২ হাজার ২২০ এমভিএ বৃদ্ধি পাবে এবং বিদ্যুতের ক্রমবর্ধমান চাহিদা পূরণে প্রকল্প এলাকাভুক্ত পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির এক কোটি ৭৮ লাখ গ্রাহককে সাশ্রয়ী মূল্যে নির্ভরযোগ্য ও মানসম্মত বিদ্যুৎ সরবরাহের মাধ্যমে গ্রামীণ জনপদের আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন হবে। 

 পরিকল্পনা কমিশনের একাধিক দায়িত্বশীল কর্মকর্তা বলেন, বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় থেকে প্রস্তাব পাওয়ার পর গত বছরের ২২ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হয় প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটির (পিইসি) সভা। ওই সভায় দেওয়া সুপারিশগুলো প্রতিপালন করায় প্রকল্পটি জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) আগামী বৈঠকে উপস্থাপনের সুপারিশ করা হয়েছে। ,

অনুমোদন পেলে ২০২৭ সালের মার্চের মধ্যে এটি বাস্তবায়ন করবে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড (বাপবিরো)। প্রকল্প প্রস্তাবে বলা হয়, বাংলাদেশের সকল জেলার (তিনটি পার্বত্য জেলা ছাড়া) গ্রামাঞ্চলের প্রতিটি ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছানোর জন্য বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড (বাপবিবো) কাজ করে চলেছে। বর্তমানে পল্লী এলাকাগুলোতে শিল্প-বাণিজ্যি ব্যাপক প্রসারের ফলে শিল্প ও বাণিজ্যিক গ্রাহকসংখ্যা ক্রমাগত বৃদ্ধির কারণে বিতরণ ব্যবস্থার লোড দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে। 

ক্রমবর্ধমান এ চাহিদা পূরণের অংশ হিসাবে ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগের বৈদ্যুতিক বিতরণ ব্যবস্থার সক্ষমতা বৃদ্ধি ও আধুনিকায়ন প্রয়োজন। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হলে ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগে বাপবিরোর আওতাধীন ২৫টি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিভুক্ত এলাকার গ্রাহককে সীমিত সিস্টেম লসে নির্ভরযোগ্য, গুণগত ও নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করা সম্ভব হবে।

 প্রকল্পের মূল কার্যক্রম হচ্ছে, ১০৭টি ৩৩/১১ কেভি নতুন সাবস্টেশন নির্মাণ, ৫৭টি ৩৩/১১ কেভি সাবস্টেশন অগমেন্টেশন, ৬ হাজার ৪০০ কিলোমিটার নতুন লাইন ও ভূগর্ভস্থ লাইন, ৬ হাজার কিলোমিটার বিদ্যমান লাইনের ক্ষমতাবর্ধন, ৬ হাজার ৫০০ কিলোমিটার ইনস্যুলেটেড কন্ডাক্টও স্থাপন, ৬ হাজার কিলোমিটার এলটি লাইনকে এইচটি লাইনে রুপান্তর, ৭ হাজার কিলোমিটার এইচটি সিঙ্গেল ফেজকে থ্রিফেজে রুপান্তর, ১৪ সেট রিভার ক্রসিং টাওয়ার নির্মাণম এক সেট স্ক্যাডা সিস্টেম স্থাপন, ৪ সেট এনার্জি স্টোরেজ সিস্টেস স্থাপন, ৬ হাজার ৩৫০ সেট ফল্ট লোকেটর স্থাপন এবং একটি সুইচিং স্টেশন স্থাপন করা হবে।

The post appeared first on Sarabangla http://dlvr.it/SPs8G0

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন