যে যেখানে পারেন গাছ লাগাবেন: প্রধানমন্ত্রী - Purbakantho

শিরোনামঃ

বুধবার, ১৫ জুন, ২০২২

যে যেখানে পারেন গাছ লাগাবেন: প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা: বিশ্বে বাংলাদেশই প্রথম জলবায়ু অভিঘাত থেকে দেশকে রক্ষায় নিজস্ব অর্থায়নে ট্রাস্ট ফান্ড করে বিভিন্ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সবাইকে গাছ লাগানোর আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, যে যেখানে পারেন গাছ লাগাবেন। গাছ আমাদের বন্ধু।,

বুধবার (১৫ জুন) বাংলাদেশ কৃষক লীগ আয়োজিত বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। সকাল সাড়ে ৯টায় গণভবন চত্বরে ছাতিম, সফেদা ও হরিতকির চারা রোপণ করে এই কর্মসূচির উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর সহকারী প্রেস সচিব মু. আশরাফ সিদ্দিকী বিটু এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।,

আওয়ামী লীগ দেশ ও মানুষের কথা চিন্তা করে বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ১৯৮৪ সালে সমগ্র দেশে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির সিদ্ধান্ত নেয়। আমাদের সহযোগী সংগঠন কৃষক লীগের উপর দায়িত্ব দেওয়া হয়, এই অনুষ্ঠানটা কৃষক লীগের নেতৃত্বে হবে। আমরা সবাই এবং অন্যান্য সহযোগী সংগঠন সকলেই এটা পালন করব। সেই থেকে আমরা ১ আষাঢ় সমগ্র বাংলাদেশে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি গ্রহণ করি এবং তা বাস্তবায়নি করি।,

শেখ হাসিনা বলেন, তখনো বিশ্বে ওই জলবায়ু পরিবর্তনের বিষয়টা আসেনি। কিন্তু আমরা আওয়ামী লীগ সবসময় দেশের কথা চিন্তা করি। দেশের মানুষের কথা চিন্তা করি। পরিবেশের কথা চিন্তা করি।,

তিনি বলেন, আমাদের দেশ একটা বদ্বীপ। এই বদ্বীপটাকে যথাযথভাবে রক্ষা করার জন্য আমরা এই কর্মসূচি পালন করে যাচ্ছি।,

প্রধানমন্ত্রী জানান, উপকূলীয় অঞ্চল থেকে শুরু করে বিভিন্ন দ্বীপাঞ্চলে কৃত্রিম ম্যানগ্রোভ করা, বৃক্ষরোপণ করার নির্দেশ দিয়েছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। সেইসঙ্গে সেখানে জোড়ায় জোড়ায় পশুপাখিও ছেড়ে দেওয়া হয়েছিল।,

তিনি বলেন, কক্সবাজারের যে বিশাল ঝাউবনটা রয়েছে, যে ঝাউবন জলোচ্ছ্বাস থেকে কক্সবাজারকে রক্ষা করে। সেই ঝাউবনটাও জাতির পিতার নির্দেশে করা হয়।,

সুন্দরবনকে রক্ষায় যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়ার কথা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, যে কারণে সুন্দরবন ১৯৯৮ সালে বিশ্ব ঐতিহ্যে স্থান পেয়েছে। বিশ্বের সব থেকে বড় ম্যানগ্রোভ বন হচ্ছে আমাদের সুন্দরবন।,

ফ্ল্যাট বাসাতেও কিছু না কিছু গাছ লাগানোর পরামর্শ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আপনারা যে যেখানে আছেন, নিজেরা একটা গাছ লাগান। শহরে যারা আছেন, তারা হয়ত ফ্ল্যাটে থাকেন। গাছ লাগাতে পারেন না। তবু আপনাদের ছোট্ট ব্যালকনির টবে ফুলের গাছ লাগাতে পারেন। কিছু পছন্দমত সবজি লাগাতে পারেন। নিদেনপক্ষে একটা কাঁচা মরিচ গাছ লাগালেও লাগাতে পারেন। যেটা নিজেদেরই ভালো লাগবে।,

অফিসে ছাদবাগানের ওপর গুরত্বারোপ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকারি অফিস যেখানে আছে, তাদেরকে বলবো, আপনারা আপনাদের ছাদ বাগান করতে পারেন। তাতে পরিবেশটাও সুন্দর থাকবে। তাছাড়া দেশের জন্য এটা কল্যাণকর হবে।,

এ সময় উপস্থিত ছিলেন কৃষক লীগের সভাপতি সমীর চন্দ, সাধারণ সম্পাদক উম্মে কুলসুম স্মৃতি, সহ সভাপতি শরীফ আশরাফ আলী, হোসনে আরা এমপি, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বিশ্বনাথ সরকার বিটু, শামীমা আক্তার খানম এমপি, সাংগঠনিক সম্পাদক জসিম উদ্দিন (গাজী জসিম) প্রমুখ।,

from Sarabangla https://ift.tt/UEsX3qf

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন