তীব্র গরম আর যানজটে নাকাল রাজধানীবাসী, শেষ বিকেলে বৃষ্টির আভাস - Purbakantho

শিরোনামঃ

বুধবার, ২৭ জুলাই, ২০২২

তীব্র গরম আর যানজটে নাকাল রাজধানীবাসী, শেষ বিকেলে বৃষ্টির আভাস

ঢাকা: ভরা বর্ষা মৌসুমেও বৃষ্টির দেখা নেই। বরং তাপমাত্রার পারদ বেড়ে ৩৪.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত ঠেকেছে। আগামী চব্বিশ ঘণ্টায় এই তাপের তীব্রতা আরও বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর। তবে সংস্থাটি জানিয়েছে, তাপমাত্রার পাশাপাশি সারাদেশে কম-বেশি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে।

এদিকে, তীব্র গরম আর রাজধানী জুড়ে যানজটে নাকাল পরিস্থিতি নগরবাসীর। সকাল থেকে রাজধানীর প্রধান সড়কগুলোতে যানজট দেখা গেছে। দুপুর গড়াতে কোনো কোনো জায়গায় তা আরও তীব্র হয়ে ওঠেছে।,


রাজধানীর যাত্রাবাড়ী হয়ে গুলিস্তানের দিকে যেতে পুরো সড়ক জুড়ে সকাল থেকে গাড়ির চাপ ছিল বেশি। দুপুরের দিকে প্রতিটি গাড়িকে প্রায় ১৫ থেকে ২০ মিনিট অপেক্ষা করতে হয়েছে সিগন্যাল পেতে। গাড়িতে অপেক্ষারত বিপ্লব দাস বলেন, বারোটায় মিটিং ছিল কারওয়ান বাজারে। কিন্তু গুলিস্তানেই বারোটা বেজে গেছে। ওই পর্যন্ত কতক্ষণে পৌঁছাতে পারব সেটা জানি না।,


নারায়ণগঞ্জ-ঢাকা রুটে চলাচল করা উৎসব পরিবহনের চালক জাহাঙ্গির আলম বলেন, নারায়ণগঞ্জ থেকে ত্রিশ মিনিটে এসে যাত্রাবাড়ী পার হতে এক ঘণ্টা লেগে গেছে। গুলিস্তানে ডিউটিরত ট্রাফিক কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম জানিয়েছেন, গত কয়েকদিনের চেয়ে আজ গাড়ির চাপ কিছুটা বেশি রয়েছে। সেজন্য একটু বেশি সময়ের পার্থক্যে সিগন্যাল ফেলতে হচ্ছে।,


খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বুধবার (২৭ জুলাই) সবচেয়ে বেশি গাড়ির চাপ ছিল কুড়িল বিশ্বরোড এলাকায়। এক কিলোমিটার রাস্তা পার হতে ৩০ মিনিট পর্যন্ত সময় লাগছে। বাড্ডা, রামপুরা, তেজগাঁও শিল্প এলাকা, মিরপুর থেকে মতিঝিল রোডে অফিস টাইমে প্রচণ্ড জ্যাম থাকলেও অবশ্য বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কমে আসছে। এছাড়া নিউমার্কেট, আজিমপুর, এদিকে পান্থপথ, শাহবাগ, মৎস্যভবন হয়ে মতিঝিল পর্যন্ত গাড়ির তীব্র চাপ ছিল। বনানী চেয়ারম্যান বাড়ি থেকে হোটেল রেডিসন পর্যন্ত গাড়ি চলেছে ধীর গতিতে।,


একদিকে জ্যাম অন্যদিকে ভ্যাপসা গরমে জনজীবন বিপর্যস্ত প্রায়। বাসে থাকা যাত্রীদের হাতপাখা ব্যবহার করতে দেখা গেছে। কিছুক্ষণ পর পর পানি ছিটাচ্ছেন নাকে মুখে। আবার কেউ কেউ হেঁটেই রওয়ানা দিয়েছেন। জিপিওর দুই রাস্তায় মানুষের জটলা লেগে থাকতে দেখা গেছে। একদিকে ফুটপাথে দোকান, রিকশা, হকার—তার ওপর পথচারী মিলে একাকার। দোকানদার বাবুল মিয়া বলেন, গাড়ির চাকা নড়ে না, সেজন্য মানুষ সব রাস্তায় নেমে আসছে। এখন তো হাটার জায়গাও নেই। একজন হাটার সময় পা বাধিয়ে দোকানের মালপত্র ফেলে দিয়েছে।,


এদিকে রাজধানীতে আজ বুধবার (২৭ জুলাই) তাপমাত্রা ৩১.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে চুয়াডাঙা ৩৪.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এছাড়া দেশের পাঁচ জেলার তাপমাত্রা ৩৩ ডিগ্রির ওপরে, আরও ছয় জেলার তাপমাত্রা ৩২ ডিগ্রির ওপরে রয়েছে। এই পরিস্থিতিতে আগামী ২৪ ঘণ্টায় তাপমাত্রা আরও বাড়ার কথা জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর।,


আবহাওয়াবিদ এ কে এম নাজমুল হক বলেন, বৃষ্টিপাত কম হওয়ার কারণে বেশি গরম অনুভূত হচ্ছে। তবে শেষ বিকালে বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।,


সারাদেশে আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রংপুর, ময়মনসিংহ, সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় এবং ঢাকা, বরিশাল, খুলনা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ মাঝারি ধরনের বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের কোথাও বিচ্ছিন্নভাবে ভারি বর্ষণও হতে পারে। পূর্বাভাস অনুযায়ী, এই বৃষ্টিপাত হবে ক্ষণস্থায়ী। আগামী পাঁচ দিন এই রোদ এই বৃষ্টি করেই কাঁটাতে হবে। পাঁচদিন পরে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ বাড়তে পারে। মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশের ওপরে কম সক্রিয়, যে কারণে বৃষ্টিপাতের পরিধি দুর্বল অবস্থায় রয়েছে।,



from Sarabangla  https://ift.tt/JQF70wY

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন