নারীর উন্নয়ন-অগ্রযাত্রায় গণতন্ত্রের বিকল্প নেই: স্পিকার - Purbakantho

শিরোনামঃ

বুধবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২২

নারীর উন্নয়ন-অগ্রযাত্রায় গণতন্ত্রের বিকল্প নেই: স্পিকার

ঢাকা: একটি দেশে নারীর উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রায় গণতন্ত্রের বিকল্প নেই বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। তিনি বলেন, যে গণতন্ত্র নারীকে এগিয়ে নিতে সাহায্য করবে সেই গণতন্ত্র আমরা চাই। যে গণতন্ত্র আমাদের পিছিয়ে নেবে তা চাই না। ,
মঙ্গলবার (১৩ সেপ্টেম্বর) ‘বাংলাদেশের জাতীয় উন্নয়ন প্রক্রিয়ায় নারী সংসদ সদস্যদের ভূমিকা বিষয়ক’ র্শীষক এক আলোচনায় তিনি এ মন্তব্য করেন। বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের আয়োজনে জাতীয় সংসদের ক্লাব অডিটোরিয়ামে এই মতবিনিময় অনুষ্ঠিত হয়। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, ‘জাতীয় সংসদে ৭৩ জন নারী সংসদ সদস্য আছেন। যার মধ্যে ৫০ জন সংরক্ষিত আর ২৩ জন সরাসরি নির্বাচিত।’ এ সময় তিনি সংরক্ষিত আসনের নারী এমপিদের সরাসরি নির্বাচনে অংশ নেওয়ার আহ্বান জানান।, 


তার জন্য মাঠ পর্যায়ে কাজ করার বিকল্প নেই বলেও মন্তব্য করেন তিনি। স্পিকার বলেন, ‘আধুনিক বিশ্বে যেখানে পঞ্চাশ-পঞ্চাশ সমতার কথা বলে সেখানে আমাদের তেত্রিশ শতাংশ চাইলে হবে না। আমাদেরও সব পর্যায়ে পঞ্চাশ শতাংশ নারীর অংশগ্রহণ নিশ্চিতের দাবি জানাতে হবে। সমান সমান বিশ্বের জন্য বড় স্বপ্ন দেখতে হবে।’ মূল বক্তব্য উপস্থাপনের সময় সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ডা. মালেকা বানু বলেন, ‘জাতীয় সংসদে নারীর সক্রিয় কার্যকর অংশগ্রহণ ধরে রাখতে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া ও প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামো প্রয়োজন।, 


এতে নারীর ক্ষমতায়নের ধারাবাহিকতা অক্ষুন্ন থাকবে ও ক্রমন্বয়নে শক্তিশালী হবে।’ লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, রাজনৈতিক ক্ষমতায়নের ক্ষেত্রে দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান শীর্ষে হলেও দেশের সামগ্রিক উন্নয়ন প্রক্রিয়ায় নারীদের যুক্ত করার ক্ষেত্রে নানা চ্যালেঞ্জ রয়েছে। এসব চ্যালেঞ্জের মধ্যে রয়েছে নারীর প্রতি সহিংসতার মাত্রা বৃদ্ধি, সাম্প্রদায়িক সহিংসতা, নির্বাচনকালীন সহিংসতা, রাজনৈতিক সহিংসতা ও নারী বিদ্বেষী প্রচার, প্রচারণা। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মেহের আফরোজ চুমকি বলেন, ‘বর্তমানে নারীরা আগের চেয়ে অনেক এগিয়ে, অনেক স্বাধীন।,



 বর্তমানে পাঁচটি স্ট্যান্ডিং কমিটিতে নারীদের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তারপরও বাল্যবিয়ে, নারীর প্রতি সহিংসতার মত সমস্যা বিদ্যমান। প্রতিটি ধর্ম অনুসারে প্রচলিত পারিবারিক আইন অনুযায়ীও নারীকে তার প্রাপ্য দেওয়া হচ্ছে না- এটি আগে নিশ্চিত করতে হবে।’ সভাপতির বক্তব্যে ডা. ফওজিয়া মোসলেম বলেন, ‘সমতা প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে রাজনৈতিক ক্ষমতায়ন গুরুত্বপূর্ণ। এর সাথে নারী আন্দোলনের একটা সম্পর্ক আছে। নারী জনপ্রতিনিধিদের কাছে নারী সমাজের প্রত্যাশা রয়েছে। পুরুষ নির্মিত সমাজে নারীদের প্রত্যেককে সহযোগিতামূলক মনোভাব নিয়ে কাজ করার মনোভাব থাকতে হবে।,



 সকল নারীর প্রতি সহিংসতা বন্ধে নারী জনপ্রতিনিধিদের কাজ করতে হবে। মতবিনিময় সভায় সংরক্ষিত নারী সংসদ সদস্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন- জাকিয়া পারভীন খানম, সৈয়দা রুবিনা আক্তার, অ্যাডভোকেট জাকিয়া তাবাসসুম, লুৎফুনন্নেছা খান, শামসুন্নাহার , রওশন জাহান সাথী প্রমুখ। সভার শুরুতে প্রয়াত সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরীর প্রয়াণে শোক প্রস্তাব পাঠ করেন অ্যাডভোকেট মাসুদা রেহানা বেগম।, 



 The post appeared first on Sarabangla http://dlvr.it/SYGZRw

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন