সারাদেশে ভারি বর্ষণের আভাস, ফের আসছে বন্যা - Purbakantho

শিরোনামঃ

সোমবার, ৪ জুলাই, ২০২২

সারাদেশে ভারি বর্ষণের আভাস, ফের আসছে বন্যা

চলছে বর্ষা মৌসুম। দেশের সর্বত্র লাগাতার বৃষ্টি না হলেও প্রতিদিনই কোথাও না কোথাও বৃষ্টি হচ্ছেই। সঙ্গে থাকছে ঝড়ো হাওয়াসহ ভারি বর্ষণও। আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী, আগামী ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশেই কম-বেশি বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

আবহাওয়াবিদদের মতে, এখনকার বৃষ্টিপাত স্বাভাবিক এবং মৌসুমি। পুরো মাস জুড়েই আবহাওয়া এমন থাকবে। তবে জুলাইয়ের মাঝামাঝি বৃষ্টিপাতের পরিমাণ বাড়তে পারে। আর সে কারণে দেশের উত্তর ও মধ্যাঞ্চলে স্বল্প মেয়াদি বন্যা দেখা দিতে পারে।

রোববার (৩ জুলাই) দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাস পর্যালোচনা করতে গঠিত বিশেষজ্ঞ কমিটি বৈঠকে বসে। সেখানে এসব বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়।,

আবহাওয়া অধিদফতরের পরিচালক ও বিশেষজ্ঞ কমিটির চেয়ারম্যান মো. আজিজুর রহমান বলেন, ‘জুলাইয়ের প্রথমার্ধে দেশের প্রধান নদ-নদীগুলোতে পানির স্বাভাবিক প্রবাহ থাকতে পারে। কিন্তু মাসের দ্বিতীয়ার্ধে দেশের উত্তরাঞ্চল, উত্তর-পূর্বাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলে বৃষ্টিপাত বেশি হওয়ার পূর্বাভাস রয়েছে। ফলে ওইসব অঞ্চলে স্বল্পমেয়াদি বন্যা দেখা দিতে পারে।’

চলতি মাসে সামগ্রিক বৃষ্টিপাতের পরিমাণ কম হতে পারে উল্লেখ করে পরিচালক জানান, চলতি জুলাইয়ে বঙ্গোপসাগরে এক থেকে দু’টি বর্ষাকালীন লঘুচাপ সৃষ্টি হতে পারে। যার মধ্যে একটি নিম্মচাপে পরিণত হতে পারে।,

এছাড়া, পূর্বাভাস অনুযায়ী, জুলাইয়ে তাপপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে। তাপমাত্রা বাড়তে পারে ৩৬ থেকে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত।.

এদিকে, আগামী ২৪ ঘন্টার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, দেশের খুলনা ও বরিশাল বিভাগের অনেক জায়গায় এবং রংপুর, রাজশাহী, ঢাকা, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম, সিলেট বিভাগের কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি বা বজ্রবৃষ্টি হতে পারে। সেইসঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে মাঝারি ধরনের ভারি থেকে ভারি বর্ষণ হতে পারে। এ সময় রাত ও দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। বৃষ্টিপাতের এই প্রবণতা আগামী পাঁচ দিন পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে। গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে মোংলায় ৪৪ মিলিমিটার।,

উল্লেখ্য, জুনের মাঝামাঝি সময়ে ভারি বৃষ্টিপাত আর উজান থেকে নেমে আসা ঢলে দেশের সিলেট অঞ্চলে বন্যা দেখা দেয়। সেই বন্যা দেশের উত্তরাঞ্চল পর্যন্ত ছড়িয়ে গেলেও সিলেটে তীব্র আকার ধারণ করে। পানির নিচে চলে যায় ওই অঞ্চলের প্রায় সব বাড়িঘর। যা এখনো বসবাসের উপযোগী হয়নি।,

from Sarabangla https://ift.tt/Xm1gZwU

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন