শিরোনাম :

10/trending/recent

Hot Widget

অনুসন্ধান ফলাফল পেতে এখানে টাইপ করুন !

ত্রাণ চুরি ঠেকাবে ‘সেন্ট্রাল সার্ভার সিস্টেম’


পাবনা প্রতিনিধি:আপৎকালীন সময়ে সরকারের মানবিক সহায়তার ত্রাণ চুরি ও জালিয়াতি ঠেকাতে সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার করে পাবনার ঈশ্বরদী পৌর এলাকায় ডিজিটাল ‘সেন্ট্রাল সার্ভার সিস্টেম’ উদ্ভাবন করা হয়েছে।
ঈশ্বরদীর উপজেলা প্রশাসন নিজস্ব অর্থায়নে এই প্রযুক্তির উদ্ভাবন করেছে।
সরকারী ত্রাণসহ অন্যান্য সহযোগিতার চুরি ও জালিয়াতি প্রতিরোধ এবং বিশেষ করে ওএসএস, ভিজিডি, ভিজিএফসহ খাদ্যবান্ধব ও অন্যান্য সকল কর্মসূচি এই প্রযুক্তির মাধ্যমে মনিটরিং ও পরিচালিত করা হবে।
বৃহস্পতিবার (৩০ এপ্রিল) দুপুরে ঈশ্বরদী পৌর এলাকার সাউথ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ দু’টি স্থানে ‘ওএসএস’ কার্যক্রমের মাধ্যমে এই প্রযুক্তির উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিহাব রায়হান।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, পৌর মেয়র আলহাজ্ব আবুল কালাম আজাদ মিন্টু, উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা মামুন-এ-কাইয়ুম, ঈশ্বরদী খাদ্য গুদামের সংরক্ষণ ও চলাচল কর্মকর্তা তারিকুল ইসলাম, সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের কাউন্সিলরবৃন্দ।
ঈশ্বরদী পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব আবুল কালাম আজাদ মিন্টু বলেন, ‘ডিজিটাল সেন্ট্রাল সার্ভার সিস্টেমকে সময়পোযোগী ও অভূতপূর্ব উদ্ভাবন। এর মাধ্যমে একই ব্যক্তির একাধিকবার ত্রাণ গ্রহণের সুযোগ না থাকার পাশাপশি হিসাবের স্বচ্ছতা থাকবে। পৌর এলাকার নয়টি ওয়ার্ডের এক হাজার ৮০০ মানুষকে প্রাথমিকভাবে এই কার্যক্রমের আওতায় আনা হয়েছে।’
ঈশ্বরদী উপজেলা সহকারী প্রোগ্রামার মাসুদ রানা বলেন, ‘বাংলাদেশে যে সাইটগুলো রয়েছে, সেখানে ব্যবহারকারীর সংখ্যা বেশি হলে ধীরগতির কারণে জরুরি প্রয়োজনের সময় কাজ হয় না। এই সফটওয়্যারে ধীরগতির সম্ভাবনা নেই। প্রতি সেকেন্ডে এক লাখ মানুষ এক সাথে এটি ব্যবহার করতে পারবে। একটি মোবাইল আ্যাপস তৈরি করা হয়েছে। এই আ্যাপস থেকে স্ক্যান করে সাবমিট করলেই সকল ফলাফল জানা যাবে। আপৎকালীন ছাড়াও বছরব্যাপী সরকারের মানবিক সহায়তার সকল কার্যক্রম এই প্রযুক্তির মাধ্যমে মনিটরিং ও পরিচালিত হবে।’
ঈশ্বরদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শিহাব রায়হান জানান, ঈশ্বরদী উপজেলার নিজস্ব অর্থায়ন ঈশ্বরদীর তথ্য ও যোগাযোগ অধিদপ্তরের সহকারী প্রোগ্রামার মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা মোতাবেক ঈশ্বরদী তথা পাবনা জেলার জন্য এই প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেছেন।
সেন্ট্রালের একটি ড্যাশবোর্ডের মাধ্যমে সহায়তা কার্যক্রম মনিটরিং ও পরিচালিত হবে। এতে চুরি ও জালিয়াতি প্রতিরোধের সাথে সাথে একই ব্যক্তি একই সময়ে একাধিকবার সহযোগিতা গ্রহণ করতে পারবে না।
ঈশ্বরদীতে সফলভাবে এই প্রযুক্তি উদ্বোধনের পর সারাদেশে এটি ব্যবহারের জন্য প্রস্তাবনা পাঠানো হবে বলেও জানান ইউএনও।

শাহীন রহমান/সনি



একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Top Post Ad

Below Post Ad