আমেরিকার বক্স অফিসে হাওয়া ঝড়, টপচার্টে ২৭ নম্বরে - Purbakantho

শিরোনামঃ

বুধবার, ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২

আমেরিকার বক্স অফিসে হাওয়া ঝড়, টপচার্টে ২৭ নম্বরে

মেজবাউর রহমান সুমন এর সিনেমা 'হাওয়া' ২ সেপ্টেম্বর উত্তর আমেরিকায় মুক্তি পেয়েছিলো । প্রথম সপ্তাহে কানাডায় ১৩টি এবং আমেরিকায় ৭৩টি মোট ৮৬ হলে মুক্তি পায় দেশে ঝড় তোলা সিনেমাটি। দ্বিতীয় সপ্তাহেও বেশ কিছু থিয়েটারে মুক্তির দিন গুণছে ‘হাওয়া’। 
এবার জানা গেলো মুক্তির প্রথম চারদিনে (লেবার ডে লং উইকেন্ড-এ) বক্স অফিসে ঝড় তুলে ইউএস টপচার্টে চলে এসেছে ‘হাওয়া’। এটিই বাংলাদেশের কোন সিনেমার প্রথম ইউ এস টপ চার্ট এ ঢুকা। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ছবিটির আন্তর্জাতিক পরিবেশক স্বপ্ন স্কেয়ারক্রোর প্রেসিডেন্ট মো. অলিউল্লাহ সজীব । মঙ্গলবার (৭ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নিজের প্রোফাইল ও স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো বাংলাদেশ এর পেজে এ তথ্যগুলো জানান তিনি। তিনি বলেন, ‘কানাডা ও আমেরিকার বাংলাদেশের সিনেমার দর্শকদের আগ্রহে বক্স অফিসে একটি ঘুর্ণিঝড়ের সংকেত দেখেছিলাম আমরা।,


সে ঝড় যে এত বড় হবে তা ছিল আমাদের কল্পনারও বাইরে। এই আনন্দের ক্ষণে আমি প্রথমেই টিম ‘হাওয়া’ এবং টিম ‘স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো বাংলাদেশ’কে অভিনন্দন জানাই। সে সাথে উত্তর আমেরিকার দর্শকদের জানাই কৃতজ্ঞতা।‘ সজীব লিখেছেন,”বাংলাদেশের প্রথম সিনেমা হিসেবে 'হাওয়া'  আমেরিকার টপ চার্টে  জায়গা করে নিয়েছে! জ্বি, আপনি ঠিক পড়ছেন। ,



ব্যবসার শক্তি দিয়ে আমাদের সিনেমা পৃথিবীর এক নম্বর টপ চার্ট এ ঢুকে পড়েছে! তাও আবার সেরা ত্রিশে! খুবই অবিশ্বাস্য লাগছে, তাই না?! আমারও বেশ সময় লেগেছে বিশ্বাস করতে। কিন্তু, এ ঘটনাটি ঘটে গেছে। বাংলাদেশের একটি সিনেমা এ ঘটনাটি ঘটিয়ে ফেলেছে। মুক্তির পর প্রথম ৪ দিনের আয়ে, 'হাওয়া' এ মুহুর্তে আমেরিকার টপ চার্টে ২৭ নম্বরে অবস্থান করছে। আপনি যদি 'অবিশ্বাস্য' কথাটার একটা বাস্তব রূপ দেখতে চান, নির্দ্বিধায় এটি সেটি। এখন আসেন, কত আয় করে 'হাওয়া' এ অভূতপূর্ব ঘটনার জন্ম দিল তা দেখি, প্রথম ৪ দিনে ('লেবার ডে' থাকার কারণে একদিন উইকেন্ড বেশি ছিল এবার), 'হাওয়া' এর গ্রস বক্স অফিস কালেকশনঃ ২১৩,৪৬১ ডলার (কানাডা গ্রসঃ ৮৬,৩১২ ডলার, আমেরিকা গ্রসঃ ১২৭,১৪৯ ডলার), এখন পর্যন্ত সিনেমাটি দেখেছেনঃ ২৫,৪৪৪ জন (কানাডায় ৯,৯৩০ জন, আমেরিকায় ১৫,৫১৪ জন)।,



বাংলাদেশি সিনেমা বিবেচনায়, এ সংখ্যা যে কত বিশাল তা বুঝতে পারবেন যখন উত্তর আমেরিকার বক্স অফিসে এতদিন পর্যন্ত সর্বোচ্চ আয় করা বাংলাদেশি সিনেমা 'দেবী'র আয়ের সাথে এটিকে মেলাবেন। ২০১৮ সালে মুক্তি পাওয়া 'দেবী'র লাইফটাইম গ্রস বক্স অফিস আয় ছিলঃ ১২৫,৪১৪ ডলার। 'দেবী'র সম্পূর্ণ আয় 'হাওয়া' মাত্র ৩ দিনেই অতিক্রম করে গেছে!!! ('হাওয়া'র ৩ দিনের আয় ১৫৯,৭৫২ ডলার) ‘হাওয়া’ সিনেমার পরিচালক মেজবাউর রহমান সুমন অভিষেক সিনেমায় দেশের পর উত্তর আমেরিকায় এমন ঝড় তোলায় উচ্ছসিত এবং বিস্মিত।,



তিনি বলেন,একজন পরিচালকের সিনেমাও যে সবশ্রেনীর দর্শকের সিনেমা হয়ে উঠতে পারে ‘হাওয়া’ সে বিশ্বাস দিলো আমাকে। আমি উত্তর আমেরিকার দর্শক, টিম ‘হাওয়া’ এবং পরিবেশক স্বপ্ন স্কেয়ারক্রোকে ধন্যবাদ জানাই। বাংলাদেশে মু্ক্তির পর ইতোমধ্যেই ব্লকবাস্টারের পথে ছুটছে ‘হাওয়া’। ছবির সাদা সাদা কালা কালা গানটি অসম্ভব জনপ্রিয়তা পেয়েছে। নানা চরিত্রে দর্শকদের মোহাবিস্ট করেছেন চঞ্চল চৌধুরী,নাজিফা তুষি,শরীফুল রাজ,সোহেল মন্ডল,সুমন আনোয়ারসহ সবাই। সান মিউজিক অ্যান্ড মোশন পিকচার্স লিমিটেড প্রযোজিত এবং ফেইসকার্ড প্রোডাকশনের ব্যানারে নির্মিত হয়েছে ছবিটি।,



   The post appeared first on Sarabangla http://dlvr.it/SXw4wM

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

পৃষ্ঠাসমূহ